আবরার ইফাজ

রিসার্চ অফিসার, ডিসমিসল্যাব
শাহজালালের বিমান মহড়াকে দুর্ঘটনা বলে প্রচার গণমাধ্যমে

শাহজালালের বিমান মহড়াকে দুর্ঘটনা বলে প্রচার গণমাধ্যমে

আবরার ইফাজ

রিসার্চ অফিসার, ডিসমিসল্যাব

ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণকালে বিমানে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে- এমন একটি সংবাদ গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয় সিঙ্গাপুর থেকে আসা একটি বিমান অবতরণের সময় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। দুর্ঘটনার দৃশ্য দাবি করে তা ফেসবুকে লাইভ করতেও দেখা যায়। যাচাইয়ে দেখা যায়, বিমান দুর্ঘটনাটি ছিল সাজানো এবং এটি ছিল নিয়মিত মহড়ার দৃশ্য, যা দুই বছর অন্তর আয়োজন করা হয়ে থাকে।

বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রতিবেদনগুলোতে বলা হয় (, , , ), ২ জুন রোববার বেলা ১১টায় সিঙ্গাপুর থেকে ঢাকায় আসা ফ্লাইট এবিসি-০০১ ফ্লাইটটি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণকালে দুর্ঘটনায় পড়েছে, এ সময় বিমানে আগুন ধরে যায়। কয়েকটি গণমাধ্যম প্রতিবেদনে লিখে, বিমানবন্দরের ফায়ার লিডার মো. আক্তার দুর্ঘটনার তথ্যটি তাদের নিশ্চিত করেছেন। এই কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে আরো বলা হয়, সিঙ্গাপুর থেকে ছেড়ে আসা এবিসি-০০১ ফ্লাইটটি শাহজালাল বিমানবন্দরে অবতরণের সময় আগুন লেগে যায়; তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

প্রকৃত ঘটনা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে ফায়ার লিডার মো. আক্তারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ডিসমিসল্যাবকে জানান, কোনো বিমান দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটেনি; এটি মূলত মহড়ার দৃশ্য ছিল। 

গণমাধ্যম থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান চলাচল সংস্থা সব আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রতি দুই বছরে একবার দুর্যোগ মোকাবেলার মহড়ার আয়োজন বাধ্যতামূলক করেছে। এই নির্দেশনা অনুসারে এ মহড়ার আয়োজন করা হয়। এবিসি-০০১ নাম ব্যবহার করে ২০১৮ সালেও একটি মহড়ার ঘটনা মঞ্চায়ন করা হয়। মো. আক্তার আরো জানান যে, মহড়ার ঘটনাটি মূলত এরই ধারাবাহিকতায় আয়োজিত।

ফ্লাইটরাডার২৪-এর তথ্য অনুযায়ী এবিসি-০০১ নামের কোন ফ্লাইট সিঙ্গাপুর থেকে বাংলাদেশে চলাচল করে না এবং এই নামের কোন ফ্লাইটের তথ্যও পাওয়া যায় না। 

ফেসবুকে ঘটনার একটি লাইভ ভিডিও পাওয়া যায়। বাংলাদেশ টাইমসের সাংবাদিক সাব্বির আহমেদের করা ফেসবুক লাইভের ১ মিনিট ৫ সেকেন্ডে বলতে শোনা যায়, “শাহজালাল বিমানবন্দরে এ মুহূর্তে এবিসি এয়ারলাইনসের একটি প্লেন দূর্ঘটনায় পড়লো এবং আগুন বের হচ্ছে। আগুন নিভাতে কাজ করছে শাহজালাল বিমানবন্দরে আগুন নেভানোর ব্যবস্থাপনায় যারা থাকে, বিমান বাহিনীর দলও আছে। এমন একটি দৃশ্যের মহড়া চলছে। এই মহড়ায় আসলে দেখানো হচ্ছে, একটি প্লেন দুর্ঘটনায় পড়ার পর তারা কী ধরণের ব্যবস্থা নেন।”

সকাল ১০টা ৫৮ মিনিটে লাইভ শুরুর সময় সাব্বির আহমেদ ক্যাপশন করেন, “শাহজালালে অবতরণের সময় প্লেনে আগুন ভয়াবহ দুর্ঘটনায় সরাসরি।” এর ১৯ মিনিট পর বেলা ১১টা ১৭ মিনিটে ক্যাপশনের পর ব্র্যাকেটে যুক্ত করা হয়: এটি একটি মহড়া: পুরো ঘটনা ছিল সাজানো।

আরো কিছু লেখা