আবরার ইফাজ

রিসার্চ অফিসার, ডিসমিসল্যাব
‘স্বাধীনতার ঘোষক জিয়া’ স্লোগানদাতা ব্যক্তিটি আবেদ আলী নন

‘স্বাধীনতার ঘোষক জিয়া’ স্লোগানদাতা ব্যক্তিটি আবেদ আলী নন

আবরার ইফাজ

রিসার্চ অফিসার, ডিসমিসল্যাব

“পিএসসির আবেদ আলী” এক অনুষ্ঠানে রাজনৈতিক স্লোগান দিচ্ছেন এমন দাবিতে একটি ভিডিও রিল প্রচার হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে (, )। ভিডিওতে এক ব্যক্তিকে “জিয়া তোমায় মনে পড়ে, আজকের এই দিনে। স্বাধীনতার ঘোষক জিয়া, লও লও লও সালাম”- এই স্লোগান দিতে শোনা যায়। শশ্রুমণ্ডিত বয়স্ক স্লোগানদাতার পরনে পাঞ্জাবি, মাথায় টুপি। ভিডিওর ক্যাপশনে দাবি করা হয়, এই স্লোগান দেয়া ব্যক্তিটি পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) সাবেক গাড়ি চালক আবেদ আলী। তবে ডিসমিসল্যাবের যাচাইয়ে দেখা যায়, স্লোগানদাতা ব্যক্তিটি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের অঙ্গ সংগঠন জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট মাওলানা কাজী মোহাম্মদ আবুল হোসেন।

সম্প্রতি বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বিসিএস) পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস সংক্রান্ত একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে পিএসসির সাবেক ড্রাইভার আবেদ আলীর নাম আরো অনেকের সঙ্গে উঠে আসে। প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে সামাজিক মাধ্যম ও গণমাধ্যমে আলোচিত হতে থাকে আবেদ আলীর নামটি। গত ৮ জুলাই আবেদ আলীসহ ১৭ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

যাচাইয়ে দেখা যায়, স্লোগানের ভিডিওটি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকীতে আয়োজিত অনুষ্ঠানের। ভিডিওটি কাজী আবুল হোসেন তার ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে শেয়ার করে এমনটি জানান। ভিডিওটি ধীরগতিতে দেখার সময় চোখে পড়ে মিলনায়তনে বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানিও উপস্থিত আছেন। কাজী আবুল হোসেনের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে তার বিভিন্ন দলীয় কার্যক্রম ও কর্মসূচির ছবি এবং ভিডিও শেয়ার করতে দেখা যায়। বর্তমানে তিনি জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের সদস্য সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

অপরদিকে আবেদ আলীর ছেলে সৈয়দ সোহানুর রহমান সিয়াম গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ফেসবুকে একটি নির্বাচনী পোস্টার শেয়ার করেন। পোস্টারে প্রধানমন্ত্রীর ছবি এবং ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগান ব্যবহার করা হয়। আবেদ আলীর ছেলে পোস্টের ক্যাপশানে লিখেন, “আসন্ন ডাসার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আমার বাবা জনাব সৈয়দ আবেদ আলী ‘চেয়ারম্যান‘ পদে আপনাদের সকলের কাছে দোয়া প্রার্থী।’ অর্থাৎ, ভিডিওতে দাবি করা ব্যক্তিটি প্রশ্নফাঁস তদন্তে অভিযুক্ত আবেদ আলী নন।

আরো কিছু লেখা