তামারা ইয়াসমীন তমা

রিসার্চার, ডিসমিসল্যাব
গণমাধ্যমের ভুয়া পেজ ও ফটোকার্ড বানিয়ে ভিসা নিষেধাজ্ঞার অপতথ্য প্রচার
This article is more than 9 months old

গণমাধ্যমের ভুয়া পেজ ও ফটোকার্ড বানিয়ে ভিসা নিষেধাজ্ঞার অপতথ্য প্রচার

তামারা ইয়াসমীন তমা

রিসার্চার, ডিসমিসল্যাব

দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠিত গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে ভিসা নিষেধাজ্ঞার ভুয়া খবর প্রচারের প্রবণতা বাড়ছে। মূলধারার গণমাধ্যমের লোগো ও ফটোকার্ড ব্যবহারের পাশাপাশি এসব গণমাধ্যমের নামে ভুয়া পেজ খুলেও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানো হচ্ছে। সম্প্রতি এধরনের দুইটি ঘটনা ডিসমিসল্যাবের নজরে এসেছে।

প্রথম আলো ও এসএ টিভির ফটোকার্ড ব্যবহার করে ফেসবুকের বেশ কিছু পোস্টে তারেক রহমান ও পিনাকী ভট্টাচার্যকে ভিসা নিষেধাজ্ঞা প্রদানের ভুয়া প্রচারণা দেখা গেছে। অন্যদিকে, ৭১ টেলিভিশনের নামে খোলা একটি ভুয়া পেজ থেকে এনটিভির ভুয়া ফটোকার্ড সম্বলিত একটি পোস্টে বিএনপির ২৮০ নেতার বিরুদ্ধে ভিসানীতি আরোপের দাবি করা হয়েছে।

তারেক রহমান ও পিনাকী ভট্টাচার্যকে ভিসা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে দাবিতে প্রথম আলোর লোগো সম্বলিত দুটি ভিন্ন ফটোকার্ডসহ পোস্ট (, , , , , ) ছড়িয়েছে সামাজিক মাধ্যমে। তবে, এ বিষয়ে প্রথম আলোর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা জানায়, কার্ড দুটো ভুয়া। প্রথম আলো এমন কোনো ফটোকার্ড বা সংবাদ প্রকাশ করেনি। নিজেদের ভেরিফায়েড পেজ থেকে প্রকাশিত একটি পোস্টেও বিষয়টি নিশ্চিত করেছে তারা। 

প্রথম আলোর লোগো সম্বলিত ভুয়া ফটোকার্ড

এসএ টিভির লোগো ব্যবহার করেও বেশ কয়েকটি পোস্টে (, ) একই দাবি করা হয়। তবে এসএ টিভির ভেরিফায়েড পেজে সম্প্রতি প্রকাশিত এমন কোনো ফটোকার্ড খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এর আগে গত ২৪ সেপ্টেম্বর  “ভিসা নীতিতে গণমাধ্যমও যুক্ত হবে: পিটার হাস” শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে প্রথম আলো। এরপর এই সংবাদটির স্ক্রিনশট সম্পাদনা করে পিটার হাসের নামে একাধিক ভুয়া উক্তি ছড়াতে দেখা যায়। প্রথম আলো তাদের ভেরিফায়েড পেজের পোস্টে (, ) ফটোকার্ডগুলো তাদের নয় বলে জানায়। 

এছাড়া, গত সপ্তাহ থেকে ফেসবুকে “যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা নিষেধাজ্ঞার আওতায় বিএনপি নেতা তারেক রহমান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, রুহুল কবির রিজভী, আমানউল্লাহ আমান, হাবিব উন নবী সহ আরও ২৮০ জনের বিরুদ্ধে ভিসা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে” শীর্ষক দাবিতে এনটিভি’র ফটোকার্ডের ডিজাইন সম্বলিত একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচারিত হয়ে আসছে। ৩০ সেপ্টেম্বর ফ্যাক্টচেকিং সংস্থা রিউমার স্ক্যানার, ফটোকার্ডটি ভুয়া হিসেবে চিহ্নিত করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করে। 

তবে, একই ছবি ৭১ টেলিভিশনের নামে পরিচালিত একটি ভুয়া ফেসবুক পেজ থেকে আজ পুনরায় পোস্ট করা হয়। পেজটির প্রোফাইল ও ফিচার ছবিতেও ৭১ টেলিভিশনের লোগো যুক্ত করা রয়েছে। অর্থাৎ, মূলধারার গণমাধ্যমের ফটোকার্ড ব্যবহারের পাশাপাশি ভুয়া পেজের মাধ্যমেও ভিসা নিষেধাজ্ঞা আরোপ সংক্রান্ত রাজনৈতিক অপতথ্যের প্রচার চলছে।

উল্লেখ্য, গত ২২ সেপ্টেম্বর দ্য ডেইলি স্টারের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক সহকারী সেক্রেটারি ডোনাল্ড লু বলেছেন, “আমরা শুরু থেকেই বলেছি, এই নীতির আওতায় ভিসা নিষেধাজ্ঞা যাদের দেওয়া হবে, তাদের নাম আমরা প্রকাশ করব না। কাউকে ভিসা না দেওয়াসহ যেকোনো ভিসা রেকর্ড মার্কিন আইন অনুযায়ী গোপনীয় তথ্য।”

আরো কিছু লেখা