ইশরাত জাহান তাঞ্জু

অতিথি লেখক
যৌনতাকে খেলা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি সুইডেন 
This article is more than 9 months old
cover

যৌনতাকে খেলা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি সুইডেন 

ইশরাত জাহান তাঞ্জু
অতিথি লেখক

সুইডেন যৌনতাকে খেলা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে এবং প্রথমবারের মতো সেখানে সেক্স চ্যাম্পিয়নশিপ আয়োজিত হতে যাচ্ছে– এমন একটি সংবাদ সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে বাংলাদেশের কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে (, , )। ইউটিউব ও ফেসবুকের কিছু পেজেও (, ) এমন তথ্য প্রচারিত হতে দেখা যায়। তবে ডিসমিসল্যাবের যাচাইয়ে দেখা গেছে, সুইডেন যৌনতাকে খেলা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি এবং এমন কোনো চ্যাম্পিয়নশিপও সেখানে আয়োজিত হচ্ছে না।

সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে যে, আগামী ৮ জুন থেকে প্রথম ইউরোপিয়ান সেক্স চ্যাম্পিয়নশিপ আয়োজন করে ইতিহাস গড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে সুইডেন। এবং চ্যাম্পিয়নশিপটি সুইডিশ সেক্স ফেডারেশনের পৃষ্ঠপোষকতায় আয়োজিত হবে। প্রতিযোগীদের একটি ক্যামেরাযুক্ত ঘরে ৬ ঘন্টা অবস্থান করতে হবে। কয়েক সপ্তাহ ধরে চলা এই প্রতিযোগীতায় বিজয়ী নির্বাচিত হবেন ৩০% জুরিবোর্ডের ভোটে আর ৭০% দর্শকের ভোটে।

কিন্তু সুইডেনের স্পোর্টস ফেডারেশনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে এ বিষয়ে কোনো বিজ্ঞপ্তি বা বিবৃতি পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে এরই মধ্যে কিছু ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদনও (, , , , ) প্রকাশ করেছে ফ্যাক্ট চেকিং সংস্থাগুলো। সুইডিশ স্পোর্টস ফেডারেশনের মুখপাত্র আনা সেটজম্যান এ বিষয়ে ডয়েচে ভেলেকে বলেছেন, “এই সব তথ্য পুরোপুরি মিথ্যা। সুইডেন ও সুইডেনের খেলা নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলে ভুল তথ্য ছড়ানো হচ্ছে। আমরা এগুলো অস্বীকার করছি।” 

সুইডিশ সংবাদমাধ্যম গোটেবোর্গস পোস্টেনের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, এসব ভুয়া দাবি ছড়ানোর নেপথ্যে আছেন ড্রাগান ব্রাটিক নামের এক যুবক, যার কয়েকটি স্ট্রিপ ক্লাব আছে। মূলত তিনি চেয়েছিলেন যেন যৌনতা একটি খেলা হিসেবে স্বীকৃতি পায়। এজন্য তিনি এবছরের জানুয়ারিতে আনুষ্ঠানিকভাবে আবেদনও জানিয়েছিলেন সুইডিশ স্পোর্টস ফেডারেশনের কাছে। কিন্তু গত মে মাসে সেই আবেদন প্রত্যাখান করা হয় এবং বিষয়টি প্রেস রিলিজের মাধ্যমে পরিষ্কারভাবে জানিয়েও দেওয়া হয়। 

গত ২ ও ৩ জুন থেকে খবরটি প্রকাশিত হতে দেখা যায় ভারতের বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে (, , , )। সেগুলোর সূত্র ধরে বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমেও এটি প্রকাশিত হয়।

আমেরিকান টিভি চ্যানেল, সিএনবিসির সহযোগী একটি ভারতীয় গণমাধ্যম ইভেন্টটিতে কীভাবে অংশ নিতে হবে সে বিষয়ে ‘বিস্তারিত’ তথ্যও প্রকাশ করেছে। ‘সুইডিশ সেক্স ফেডারেশন’ নামক একটি প্রতিষ্ঠানের ইমেইল ঠিকানাও দিয়েছে তারা। তবে মজার বিষয় হলো, এরকম নামের কোনো ওয়েবসাইট নেই, বরং লিংকটি ভিন্ন একটি ইউআরএল ঠিকানার পর্নোগ্রাফি সাইটে নিয়ে যাবে যেখানে তথাকথিত ‘টুর্নামেন্ট’-এর কাউন্ট ডাউন চলছে এবং ইভেন্টটি সরাসরি সম্প্রচারিত হবে বলেও বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে।

আরো কিছু লেখা