আবরার ইফাজ

রিসার্চ অফিসার, ডিসমিসল্যাব
সারমেয় অভিনেতা মেসি অস্কারের মূল অনুষ্ঠানে ছিল না, তালিও দেয়নি
This article is more than 1 month old

সারমেয় অভিনেতা মেসি অস্কারের মূল অনুষ্ঠানে ছিল না, তালিও দেয়নি

আবরার ইফাজ
রিসার্চ অফিসার, ডিসমিসল্যাব

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলসের জমকালো একাডেমি অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠান। দর্শকসারিতে বসে হাততালি দিচ্ছে ‘মেসি: দ্য ডগ’- সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এক্সে (পূর্ববর্তী টুইটার) এমন এক ভিডিও ভাইরাল। ‘অ্যানাটমি অব আ ফল’ সিনেমায় অভিনয় করে তুমুল আলোচনায় আসা কুকুর মেসির এই মানবিক অভিব্যক্তি নিয়ে সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছে বাংলাদেশের কিছু গণমাধ্যমে (, , , , , , )। ডিসমিসল্যাবের যাচাইয়ে দেখা গেছে দৃশ্যটি বানানো; মেসি অস্কারের মূল এই আসরে অংশ নেয়নি, তালিও দেয়নি। ভিডিওতে দৃশ্যমান পা দুটো ছিল কৃত্রিম।

ডিসমিসল্যাবের যাচাইয়ে জানা যায়, তালির ভিডিওটি একাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের মূল অনুষ্ঠানের না। একটি ইউটিউব শর্টসে দেখা যায়, মেসির সঙ্গে আরো কিছু মানুষ বসিয়ে একটি মিলনায়তনে তালির দৃশ্য রেকর্ড করা হচ্ছে। 

যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েট প্রেসের (এপি) প্রতিবেদনে বলা হয়, মেসি মূল অনুষ্ঠানে অংশই নেয়নি; বরং আগে ধারণকৃত একটি ক্লিপ মূল ভিডিওতে জুড়ে দেয়া হয়েছে।

এপির প্রতিবেদনে সংস্থাটির চিত্রগ্রাহক ক্রিস পিজেলোর মাধ্যমে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে লেখা হয়, অনুষ্ঠান শুরুর ৪৫ মিনিট আগে অতিথিরা যখন ডলবি থিয়েটারে আসতে শুরু করেছেন, তখন মেসির এই ভিডিওটি রেকর্ড করা হয়; যা পরে অতিথিদের ‘প্রতিক্রিয়া’ দৃশ্যের সঙ্গে জুড়ে দেয়া হয়েছে। প্রতিবেদনে আরো বলা হয় যে, সম্ভবত অনুষ্ঠান শুরুর আগেই মেসি চুপিচুপি থিয়েটারের বাইরে চলে গিয়েছিল বিশ্রামের জন্য।

মেসি যে অস্কারের মূল অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তালি দেয়নি তা এসেছে ইউএসএ টুডের এক প্রতিবেদনে। যুক্তরাষ্ট্রের এই গণমাধ্যমটি সাজানো ভিডিও ধারণের একটি ছবি যুক্ত করে বলেছে, মেসির তালির দৃশ্যটি মৌলিক নয়। আসলে মেসির চেয়ারের সামনে শুয়ে এক ব্যক্তি দুইটি কৃত্রিম পা উপরে তুলে নাড়াচ্ছিল।

একই তথ্য এসেছে লন্ডনভিত্তিক গণমাধ্যম দ্য ট্যাবের এক যাচাই প্রতিবেদনে।

অস্কার আসরে হাততালি দিয়েছে অভিনেতা কুকুর মেসি- এমন তথ্য এসেছে বাংলাদেশের বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে- যার মধ্যে আছে মানবকণ্ঠ, আরটিভি, চ্যানেল আই, রাইজিংবিডি, ঢাকা প্রকাশ, দিনবদল। 

প্রথম আলো ১১ মার্চ এই বিষয়ে দুইটি প্রতিবেদন করেছে, যার একটিতে ভুল তথ্য দেখা যায়। ওয়েবসাইটে প্রকাশিত লিখিত সংস্করণের প্রতিবেদনটিতে হয়েছে যে ‘মেসির এই হাততালি সত্যি নয়।’ তবে ভিডিও প্রতিবেদনে বলা হয়, দর্শকসারিতে তালি বাজিয়েছে মেসি।

প্রথম আলো তাদের লিখিত প্রতিবেদনে লিখে: “‘ওপেনহেইমার’ সিনেমার জন্য পার্শ্বচরিত্রে সেরা অভিনেতার পুরস্কার পেয়েছেন রবার্ট ডাউনি জুনিয়র। পুরস্কার নেওয়ার সময় সবাই যখন দাঁড়িয়ে অভিনন্দন জানাচ্ছিলেন তাঁকে, তখনই ক্যামেরার নজর যায় মেসির দিকে। দুই পা দিয়ে করতালির মাধ্যমে অভিবাদন জানানোর চেষ্টা করছে সে! 

যদিও পরে জানা গেছে, মেসির এই হাততালি সত্যি নয়। বরং মেসির ট্রেনার লরা মার্টিন প্লাস্টিকের পা দিয়ে আগে দৃশ্যটি রেকর্ড করে রেখেছিলেন। প্রি-রেকর্ডেড ক্লিপটি চালানো হয় শোর মাঝখানে।”

১১ মার্চ রাত সাড়ে আটটায় প্রথম আলো তাদের ওয়েবসাইটে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে। তবে এর ঘণ্টা দুয়েক পর তাদের ইউটিউব চ্যানেলফেসবুক পেজে একটি ভিডিও ক্লিপ প্রকাশ হতে দেখা যায়। এই প্রতিবেদনে ভুল তথ্য দিয়ে শিরোনাম করা হয় ‍“অস্কারের দর্শক সারিতে এ কোন মেসি।” সঙ্গে যোগ করা হয়: “দর্শকসারিতে তালি বাজিয়ে ভাইরাল হয়ে গেল চার পায়ে ভর করা এই অভিনেতা”। ভিডিও প্রতিবেদনের শুরুতেই বলতে শোনা যায়, “প্রথমত তার নাম মেসি। তারপর আবার অস্কারের দর্শক সারিতে বসে তালি বাজালেন তিনি। আর হয়ে গেলেন আলোচনার বিষয়বস্তু।‍”

যাচাইয়ে অস্কার পুরস্কার ঘোষণার দৃশ্য পাওয়া যায় যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম এবিসি নিউজের একটি ভিডিওতে।  এতে দেখা যায়, মেসির হাততালির দৃশ্যটি অভিনেতা রবার্ট ডাউনি জুনিয়রকে অস্কার পুরস্কার দেয়ার পরমুহূর্তের। এবিসি নিউজ বলছে, ভিডিওটি ‘একাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস এন্ড সায়েন্সেস’ থেকে নেয়া। ভিডিওটিতে যুক্ত মেসির তালি দেয়ার দৃশ্যটি যে পূর্বধারণকৃত তারা তা উল্লেখ করেনি।

এছাড়া, “মেসি দ্য ডগের তালির ভিডিও দিয়ে দর্শকদের ‘বোকা’ বানালো অস্কার, যা দেখা গেল ভিডিওতে” শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে নিউজউইক। 

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলসের ৯৬তম একাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের জমকালো আয়োজন বসে গত ১১ মার্চ। অনুষ্ঠানের জন্য সারমেয় অভিনয় শিল্পী মেসিকে ফ্রান্স থেকে যুক্তরাষ্ট্রে উড়িয়ে নেওয়া হয়। জাস্টিন ত্রিয়েত পরিচালিত ‘অ্যানাটমি অব আ ফল’ সিনেমায় অভিনয় করে আলোচনায় আসে মেসি। এসিনেমায় স্নুপ নামের কুকুরের চরিত্রের অভিনয় করেছে মেসি। স্নুপ হলো মিলো নামের একজন দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী ব্যক্তির পোষা কুকুর। একটি রহস্যজনকভাবে মৃত্যু, তদন্ত, হত্যাকাণ্ড বলে সন্দেহ এসব ঘিরেই আবর্তিত হয়েছে ‘অ্যানাটমি অব আ ফল’। 

মেসির গলায় খেতাব যদিও দেখা যায়নি, তার সিনেমা ‘অ্যানাটমি অব আ ফল’ অস্কার জিতেছে সেরা মৌলিক চিত্রনাট্যের জন্য। এর আগে পাম ডি’অর জয় করেছে মেসির এ চলচ্চিত্র এবং সে নিজেও পাম ডগ অ্যাওয়ার্ড জিতেছে। সেই থেকে হলিউডে বারবার উচ্চারিত হচ্ছিল মেসির নাম। মেসির অনেক ভক্ত প্রাণী শ্রেনিতে অস্কার পুরস্কার চালুর দাবিও তুলেছে। 

আরো কিছু লেখা